মন্ত্রিসভার সদস্য, তাই সব কথা বলতে পারলেন না বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশ | ২৩ জানুয়ারি ২০১৮, ২৩:৫২ | আপডেট: ২৪ জানুয়ারি ২০১৮, ১২:২৫

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট

মন্ত্রিসভার সদস্য হিসেবে সব কথা বলতে পারলেন না বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। শুধু বললেন, ব্যাংক ও আর্থিক খাতের বিষয়ে সরকারকে আরও সতর্ক হতে হবে।

মঙ্গলবার স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে প্রশ্নোত্তর পর্ব শেষে জিয়াউদ্দিন বাবলু পয়েন্ট অব অর্ডারে ফ্লোর নেন। পরে তোফায়েল আহমেদসহ আরও দুজন সদস্য তার সঙ্গে যুক্ত হন।

জিয়াউদ্দিন বলেন, অর্থমন্ত্রী স্বীকার করেছেন যে বেসিক, সোনালী, অগ্রণী ও জনতা ব্যাংক অত্যন্ত রুগ্ন। তাদের নিজস্ব মূলধন নেই। আগে শুনতাম ঋণ খেলাপি, এখন শুনছি ব্যাংক খেলাপি। ব্যাংক গ্রাহকদের টাকা ফেরত দিতে পারছে না। এর দায়-দায়িত্ব কে নেবে?

তিনি বলেন, সামান্য ঋণ খেলাপির জন্য কৃষক, রিকশাচালক ও নিম্নবিত্ত মানুষকে জেল খাটতে হচ্ছে। কিন্তু যারা ব্যাংককে খেলাপিতে পরিণত করেছেন, তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না। আমরা কোন অবস্থায় আছি, তা জানতে চাই। আমরা কি ভাসমান নৌকায় নাকি ডুবন্ত নৌকায়?

এরপর আলোচনায় অংশ নিয়ে মন্ত্রিসভার সদস্য হিসেবে সব কথা বলতে পারবেন না উল্লেখ করে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ব্যাংকিং খাত নিয়ে জিয়াউদ্দিন বাবলু যে প্রশ্ন তুলেছেন, আমি নিজেও তার সঙ্গে একমত। তবে সরকার নীরবে বসে নেই। পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে এবং নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, আমাদের উন্নয়নের সব সূচক পজিটিভ। তবে ব্যাংকের ব্যাপারে আমাদেরকে আরও যত্নশীল হতে হবে। আরও সতর্ক হতে হবে। কারণ, ব্যাংকিং খাত আমাদের অর্থনীতিতে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে।

কে/এসএস