• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

রোহিঙ্গাদের নিঃশর্তে ফিরিয়ে নেয়ার আহ্বান সিপিএর

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক
|  ০৭ নভেম্বর ২০১৭, ২৩:০৪ | আপডেট : ০৮ নভেম্বর ২০১৭, ০৯:০৯
ঢাকায় অনুষ্ঠিত কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (সিপিএ) পক্ষ থেকে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনে কারণে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের নিঃশর্তে ফিরিয়ে নিতে আহ্বান জানানো হয়েছে। পাশাপাশি তারা যে মানবেতর সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন, তা সমাধানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ারও আহ্বান জানানো হয় সংগঠনটির এক বিবৃতিতে।

মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে এ সংক্রান্ত এক বিবৃতিতে এই আহ্বান জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, জাতিসংঘের চার্টার্ড, বিশ্ব মানবাধিকার ঘোষণা, আইপিইউ ১৩৭তম সম্মেলনে এজেন্ডাগুলোকে সামনে রেখে এবং জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ যে প্রস্তাবনা দিয়েছে তার আলোকে রোহিঙ্গা সমস্যার দ্রুত সমাধান করা হোক।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর যে নিধনযজ্ঞসহ মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে সেটিরও তীব্র নিন্দা জানানো হয় ওই বিবৃতিতে। সিপিএ মিয়ানমার সরকারকে অবিলম্বে নিঃশর্তভাবে এ সহিংসতা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছে। একই সঙ্গে দ্রুত সময়ের মধ্যে নিরাপদ ও মর্যাদার সঙ্গে তাদের ফিরিয়ে নিতে বলেছে তারা।

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিয়ে এবং তাদের টেকসই ও চিরস্থায়ী প্রত্যাবর্তনের আহ্বান জানানো হয় সিপিএর পক্ষ থেকে। এসময় তাদের নিরাপত্তা, জীবিকা ও নাগরিক অধিকারও নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের জন্য সীমান্ত খুলে দিয়ে খাদ্য-বস্ত্র, আশ্রয়, স্যানিটেশন ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করায় কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলো বাংলাদেশ সরকার, বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করেছে। এছাড়া এ সংকট মোকাবেলার জন্য বাংলাদেশকে সহায়তা করার জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে সিপিএ সেক্রেটারি জেনারেলকে অনুরোধ জানানো হয়, তিনি যেন রোহিঙ্গা সংকটের বিষয়ে সিপিএভুক্ত সংসদ, জাতিসংঘের মহাসচিব, সংশ্লিষ্ট আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সংস্থাকে অবহিত করেন। পরবর্তী সিপিএ কনফারেন্সের সাধারণ অধিবেশনে মিয়ানমারের এ ঘটনা নিয়ে উদ্বেগের প্রকাশ বিষয় থাকলে তা উত্থাপন করতে বলা হয়েছে।

বিবৃতিতে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনকে রাখাইন রাজ্যে একটি গোষ্ঠীকে নির্মূল, স্বৈরচারতন্ত্র ও জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত উল্লেখ করে মানবাধিকারের লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করা হয়।

উল্লেখ্য, গেলো ২৫ আগস্ট রাখাইনে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী অভিযান শুরু করলে ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। জাতিসংঘ রাখাইনে জাতিগত নিধন চলছে বলে জানিয়েছে।

এ/এসএস 

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়