close
ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭ | ০৮ কার্তিক ১৪২৪

ধ্বংস হচ্ছে বনভূমি, হুমকির মুখে পরিবেশ (ভিডিও)

সোহেল রানা
|  ২৩ জুলাই ২০১৭, ১৩:৩৬ | আপডেট : ২৩ জুলাই ২০১৭, ১৩:৫৬
আদালতের আদেশ উপেক্ষা করে গাজীপুরের কালীগঞ্জের নাগরী ইউনিয়নের বড়কাউ ও পাড়াবর্থা মৌজার চারটি গ্রামের বিস্তীর্ণ কৃষিজমি ও বনভূমি উজাড় করছে ‘রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ’। এতে একদিকে যেমন ধ্বংস হচ্ছে বনভূমি তেমনি হুমকির মুখে পড়ছে পরিবেশ।

পরিবেশ সচেতনতামূলক কার্টুনের মতোই এখন নির্বিচারে উজাড় হচ্ছে বনভূমি। মানুষের অতিরিক্ত চাহিদা পূরণ করতে কাটা হচ্ছে গাছ, দখল হচ্ছে আবাদি জমি আর এর পরিবর্তে গড়ে তোলা হচ্ছে নগরায়ণ! যার শেষ পরিণতি ভোগ করতে হবে মানুষকেই।

এদিকে, পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্প বাস্তবায়নের নামে ২০০২ সালে রাজউক গাজীপুরের নাগরী ইউনিয়নের দু'টি মৌজার বড়কাউ ও পাড়াবর্থা গ্রামের জমি হুকুম দখল করে প্লট তৈরির কাজ শুরু করে। অধিগ্রহণকৃত এ জমির চার ভাগের তিন ভাগই ছিলো ঘন ও মিশ্র বনভূমি। আর সেখানে উঁচু ভূমি ও শালবনের পরিমাণ ছিলো এক হাজার ৩০০ একর। 

তবে এ এলাকায় এখন আর আবাদি জমি ও বনভূমি খুঁজে পাওয়ার উপায় নেই। গাছপালা কেটে বালু দিয়ে জমি ভরাট করায় এলাকাটি এখন ধুধু মরুভূমি। আর কৃষিনির্ভর এলাকার মানুষ ভূমি হারিয়ে অনেকেই এখন বেকার। 

বেলা প্রধান নির্বাহী রেজওয়ানা সিদ্দিক জানান, নতুন উপশহরের নামে স্বয়ং রাজউকই পরিবেশ ধ্বংসে মেতেছে। আইনতো মানছেনই না বরং হাইকোর্টের আদেশকেও বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখাচ্ছে তারা। মানুষের বাসস্থানের চাহিদা মেটাতে নগরায়ণ হতেই পারে।তাই বলে পরিবেশ ধ্বংস করে এমন নগরায়ণের যৌক্তিকতা মানা যায় না।

তবে এ বিষয়ে রাজউকের বক্তব্য জানতে বারবার চেষ্টা করেও কর্তৃপক্ষের কারো সঙ্গেই যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

 

আরকে/এসজে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়