• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

ট্যানারির সব সেবা সংযোগ বিছিন্ন, রবিবার আদালতে প্রতিবেদন

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৮ এপ্রিল ২০১৭, ২১:১৩ | আপডেট : ০৯ এপ্রিল ২০১৭, ১৮:২০
রাজধানীর হাজারীবাগে ট্যানারির ১২৩টি টেলিফোন সংযোগ, ১৯৩টি পানির লাইন, ২২৪টি বিদ্যুৎ সংযোগ ও ৫৪টি তিতাসের লাইন বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। আদালতের আদেশে পরিবেশ অধিদফতর এ অভিযান পরিচালনা করে। আগামীকাল রবিবার আদালতে এ নিয়ে প্রতিবেদন দাখিল করবে অধিদপ্তর। বললেন অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কাজী সারওয়ার ইমতিয়াজ হাশমী।

৬ এপ্রিলের মধ্যে হাজারীবাগের ট্যানারির গ্যাস-বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে পরিবেশ অধিদপ্তরকে উচ্চ আদালত আদেশ দিয়েছিল। আর সে আদেশেই শনিবার সকাল থেকে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

আইনশৃঙ্খনা পরিস্থিতির যেন অবনতি না ঘটে সেজন্য হাজারীবাগ থানা ও গোয়েন্দা পুলিশ সহযোগিতা করছে।

পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, এ বিচ্ছিন্ন অভিযান আরো দু’দিন আগেই করার কথা ছিল। কিন্তু ঢাকায় দুটি বড় সম্মেলনের কারণে অভিযান পিছিয়ে আজ করা হয়েছে।

ট্যানারি মালিকদের সংগঠন ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শাহীন আহমেদ বলেন, আমরা আদালতের রায় মেনে নিচ্ছি। কর্তৃপক্ষ বিদ্যুৎ-গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে এলে আমরা অবশ্যই তাদের সহযোগিতা করবো। কিন্তু আমাদের দাবি মেনে নিতে হবে সরকারকে। সংযোগ বিচ্ছিন্ন হলে ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাবে। কোটি কোটি টাকার ক্ষতি আর বেকার হয়ে যাবে অনেক লোক। এত শ্রমিককে সামলানো আমাদের পক্ষে কষ্ট হয়ে যাবে। কারণ বন্ধ ঘোষণা করলে বা লে-অফ ঘোষণা করলে শ্রমিকেরা সেটা সহজে মেনে নেবেন না।

হাজারীবাগে থাকা ১৫৪টি ট্যানারি সরিয়ে সাভারে নিতে ১৯৯ একর জমিতে চামড়াশিল্প নগরী গড়ে তোলা হয়েছে।

এ দিকে ২০০১ সালে দেয়া আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী কারখানাগুলো সাভারের হরিণধরায় সরিয়ে নিতে ২০০৩ সালে তিন বছর মেয়াদি যে প্রকল্প হাতে নেয়া হয়, তার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে এক যুগ আগে। এরইমধ্যে প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে সাতবার। ১৭৫ কোটি ৭৫ লাখ টাকার প্রকল্পের ব্যয় বাড়তে বাড়তে করা হয়েছে এক হাজার ৭৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা।

এমসি/ এএইচসি/

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়