• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

ইয়াহিয়াকে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে আলোচনার অনুরোধ পশ্চিম পাকিস্তানের নেতাদের

অনলাইন ডেস্ক
|  ১৩ মার্চ ২০১৭, ১০:৪৬ | আপডেট : ১৩ মার্চ ২০১৭, ২০:০০
একাত্তরের মার্চ মাসে যতো দিন গড়াচ্ছিল স্বাধীনতাকামী বাঙালির ঐক্য ততোই সুদৃঢ় হচ্ছিল। বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে তখনকার চলমান অসহযোগ আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। আন্দোলনের এক সপ্তাহের মাথায় সারাদেশ প্রায় অচল হয়ে পড়ে।

একাত্তরের এইদিনে এদিন পশ্চিম পাকিস্তানের সামরিক কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ১৫ মার্চ সকাল ১০টার মধ্যে প্রতিরক্ষা বিভাগের কর্মচারিদের কাজে যোগ দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। অন্যথায় নির্দেশ অমান্যকারীদের সর্বোচ্চ ১৪ বছর পর্যন্ত সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হবে।

অন্যদিকে বঙ্গবন্ধু এ নির্দেশের প্রতিবাদে বলেন, জনগণকে যতো ভয় দেখানো হোক না কেন, তারা তাদের সংগ্রাম চালিয়ে যাবে।

আর ন্যাপ প্রধান মওলানা ভাসানী এক জনসভায় বলেন- বর্তমানে পূর্ব বাংলা মূলত স্বাধীন। বাঙালি এখন একটি পূর্ণাঙ্গ সরকার গঠনের অপেক্ষায় রয়েছে।

অসহযোগ আন্দোলনের এই পরিস্থিতিতে এক জরুরি বৈঠকে বসে পশ্চিম পাকিস্তানের নেতারা। সভা শেষে জাতীয় পরিষদের পাঁচটি দলের নেতারা প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়াকে অবিলম্বে বাংলাদেশে গিয়ে শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে অর্ন্তবর্তীকালীন সরকার গঠনের অনুরোধ জানান।

এদিন ঢাকা ছেড়ে যান জাতিসংঘ, পশ্চিম জার্মান দূতাবাসের কর্মচারিসহ ইতালি, ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং কানাডার আড়াইশ’ নাগরিক।

একাত্তরের উত্তাল মার্চে প্রায় সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ছিল। স্বাধীনতার সপক্ষে দৃঢ় সমর্থন জানান, পূর্ব পাকিস্তানের সিভিল সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা।

জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়