• ঢাকা বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

পাকিস্তানের জাতীয় সঙ্গীত প্রচার বন্ধ করে দেয়া হয়

নুসরাত জাহান সিনথী
|  ০৮ মার্চ ২০১৭, ১৮:৫৮
একাত্তর সালের উত্তাল ৮ মার্চ সকালে বঙ্গবন্ধুর  ভাষণ প্রচারের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ঢাকা বেতারের কার্যক্রম। ৭ মার্চের সফল মহাসমাবেশের পর টালমাটাল পাকিস্তান সরকার ঊর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসেন। অন্যদিকে বাঙালিদের সশস্ত্র প্রশিক্ষণের খবর যায় প্রেসিডেন্ট হাউজে।

৭১’র এদিন পূর্ব পাকিস্তানের সব জাতীয় দৈনিকের প্রথম পাতা জুড়ে ছিল বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের খবর। বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে সাড়া দিয়ে এদিন থেকেই সারাদেশে শুরু হয় সংগ্রাম পরিষদ গঠনের কাজ।

এদিন বিদেশি একটি টেলিভিশনে দেয়া সাক্ষাৎকারে বঙ্গবন্ধু বলেন, পাকিস্তানি জান্তাদের কোনো ষড়যন্ত্র মেনে নেয়া হবে না।

অন্যদিকে, এদিন রাওয়ালপিন্ডিতে ৮ ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তার সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন ভুট্টো। আর পাক গোয়েন্দারা রাওয়ালপিন্ডিতে বার্তা পাঠায় ঢাকাসহ দেশের ৫৮ জায়গায় মুজিবের অনুসারীরা অস্ত্র প্রশিক্ষণ নিচ্ছে।

এদিন সকাল ৮টায় বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ রেডিওতে প্রচার করা হয়। অন্যদিকে, বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে কর্মবিরতির ঘোষণা দেন সরকারি-আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের কর্মচারিরা।

এছাড়াও এদিন বেতার ও টেলিভিশনে পাকিস্তানের জাতীয় সঙ্গীত প্রচার বন্ধ করে দেয়া হয়। স্বাধীনতা আন্দোলন দানা বাঁধতে শুরু করে সারাদেশে।

কে/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়